Over 10 years we helping companies reach their financial and branding goals. Onum is a values-driven SEO agency dedicated.

CONTACTS

ব্লগিং করে অনলাইন ইনকাম-৩ : কীভাবে ব্লগ মনিটাইজ করবেন?

ব্লগিং করে অনলাইন ইনকাম করার জন্য কীভাবে ব্লগ মনিটাইজ করবেন এবং কোন সময় কোন মেথডে মনিটাইজ করবেন – এ সম্পর্কে আপনি বিস্তারিত জানতে পারবেন এই কমপ্লিট পোস্টে।

কীভাবে ব্লগ মনিটাইজ করবেন?

গত দুটি পর্বে আমরা কিভাবে ব্লগের জন্য নিশ নির্বাচন করবো এবং কন্টেন্ট স্কেলিং করবো এবিষয়ে ডিটেইলস আলোচনা করেছি।

আপনি যদি না পড়ে থাকেন তাহলে আগে নিচের লিংকে ক্লিক করে পড়ে নিন …

পার্ট-১: কিভাবে ব্লগের জন্য নিশ নির্বাচন করবেন?

পার্ট-২: কিভাবে ব্লগের কন্টেন্ট স্কেলিং করবেন?

তাহলে আপনার জন্য এই পর্বের লেখার বিষয়বস্তু বুঝতে সুবিধে হবে। চলুন এবার শুরু করা যাক …

কীভাবে ব্লগ মনিটাইজ করবেন?

ব্লগিং করে অনলাইন ইনকাম করার জন্য অনেকগুলো উপায় আছে, যেমন – এফিলিয়েট মার্কেটিং, এ্যাডস প্লেসমেন্ট, কন্স্যাল্টিং, অনলাইন কোর্স, ওয়ান-টু-ওয়ান কোচিং, সার্ভিস সেলিং, স্পন্সরড পোস্ট, ই-বুক সেলিং, সফটওয়্যার বিক্রিয় সহ অনলাইন স্টোরের মাধ্যমে নিশ রিলেটেড ফিজিক্যাল প্রোডাক্টও সেল করতে পারবেন আপনি। 

এর মধ্যে কিছু ক্ষেত্রে খুবই অল্প ভিজিটর থেকে যেমন অনেক ইনকাম করা যায়, আবার কিছু ক্ষেত্রে অনেক বেশি পরিমান ট্র্যাফিক এর প্রয়োজন পরে।

এজন্য, আপনার ব্লগের জন্য সঠিক মনিটাইজেশন প্ল্যান করা এবং তা সঠিক সময়ে প্রয়োগ করা খুবই গুরত্তপুর্ণ ভূমিকা পালন করে।

১। ব্লগ মনিটাইজেশনের সঠিক সময় নির্ধারণ করুন

এই বিষয়টি অনেক গুরত্তপুর্ণ, কারণ ঠিক কিভাবে আপনি ইনকাম করতে চান এবং কত পরিমান ইনকাম করতে চান এর উপর নির্ভর করে একটা প্ল্যান তৈরি করতে হবে যা আপনার ব্লগের ভিজিটরের পরিমানের উপর নির্ভর করে সে অনুযায়ী মনিটাইজ করতে হবে।

ধরুন, আপনি নতুন একটা ব্লগ তৈরি করেছেন এবং শুরুতেই সেখানে প্রতি পেজে এ্যাডস শো করানো শুরু করলেন অথচ আপনার ব্লগের কোন ভিজিটর নেই।

যেখানে এ্যাডস থেকে ১০০০ ডলার আয় করার জন্য লাখের উপর ভিজিটর দরকার।

তাহলে, কি দাড়ালো বিষয়টা? – আপনি কিছুদিন পর হতাশ হয়ে পরবেন। কারণ আপনার ব্লগের যে পরিমান ভিজিটর তা দিয়ে এ্যাড ব্যবহার করে 10 ডলারও মাসে ইনকাম করতে পারবেন না।

একইভাবে, এই অল্প পরিমান ভিজিটর দিয়ে শুরুতে এফিলিয়েট মার্কেটিং থেকেও আপনি তেমন আয় করতে পারবেন না।

monetize your blog

কারণ, এফিলিয়েট মার্কেটিং থেকে সেল শুরু করতেও ডেইলি ১০০+ টার্গেটেড ভিজিটরের দরকার পরে। আর মোটামুটি ১০০০ ডলার ইনকাম করার জন্য ৫-১০ হাজার মান্থলি ভিজিটরের প্রয়োজন পড়ে নিশের উপর নির্ভর করে।

আপনি অবশ্যই এফিলিয়েট মার্কেটিং, স্পন্সর্ড এ্যাডস, কোর্স বা ডিজিটাল প্রোডাক্ট সেলিং থেকে খুবই ভালো প্যাসিভ ইনকাম করতে পারবেন, তবে মনে রাখবেন এই মেথডগুলো থেকে ভালো ইনকাম জেনারেট করতে কিছুটা সময় লাগে (৬-১২ মাস)।

কিন্তু আপনি যদি নেক্সট ৩-৬ মাসের মধ্যে ভালো একটা ইনকাম চান এবং আপনার জব ছেড়ে দিয়ে ব্লগিং কে বেছে নিতে চান। এটা কি আদৌ সম্ভব?

জী, সম্ভব। যদি আপনি সঠিক নিশ নির্বাচন করে থাকেন এবং সেই নিশের যদি মার্কেটে পর্যাপ্ত ডিমান্ড থাকে তাহলেই সম্ভব।

সেক্ষেত্রে আপনি প্রথম দিন থেকেই আপনার ব্লগকে মনিটাইজ করতে পারবেন এবং এরজন্য খুব বেশি ভিজিটরের প্রয়োজন পড়ে না।

নিচের ব্লগ মনিটাইজেশন টাইমলাইন ফলো করে আপনার ব্লগকে সঠিক সময়ে এবং সঠিক উপায়ে মনিটাইজ করে আপনার টার্গেটেড ইনকাম করতে পারবেন।

ব্লগ মনিটাইজেশন টাইমলাইনঃ

  • ১-৯০ দিনঃ কন্স্যাল্টিং বা সার্ভিস সেলিং (০-১০০০ মাসিক ওয়েবসাইট ভিজিটর)
  • ৯০-১৮০ দিনঃ এফিলিয়েট মার্কেটিং (১০০০ – ৫০০০ মাসিক ওয়েবসাইট ভিজিটর)
  • ১৮০-৩৬৫ দিনঃ ডিজিটাল প্রোডাক্ট সেলিং (৫০০০ – ১০০০০ মাসিক ভিজিটর)
  • ৩৬৫+ দিনঃ অন্যান্য প্যাসিভ ইনকাম মেথড (২০০০০+ মাসিক ভিজিটর)

যেহেতু, আপনি যে নিশ নিয়ে ব্লগিং করতে চাচ্ছেন তাতে আপনার ভালো অভিজ্ঞতা আছে সেহেতু আপনি শুরুর দিন থেকেই কন্স্যাল্টেন্সি বা রিলেটেড সার্ভিস সেলিং এর মাধ্যমে অনেক ভালো ইনকাম জেনারেইট করতে পারবেন শুরু থেকেই।

এখন আপনার মনে হতেই পারে যে, আমার নতুন ব্লগ বা আমাকে চেনেই বা কয়জন; তাহলে কেন আমার সার্ভিস বা কন্স্যাল্টেন্সি নিবে – তাইনা?

জী, নিবে – কারণ আপনি শুরু থেকেই রিলেটেড এরিয়াতে রিলেশন বিল্ড করা শুরু করবেন এবং আপনার ব্লগকে প্যাশন না বিজনেস হিসেবে ট্রিট করবেন। যার ফলে আপনি বেশকিছু ভালো ক্লায়েন্ট তৈরি করতে পারবেন নেক্সট ৯০ দিনের মধ্যে।

এই পোস্টের মাধ্যমে শুরু থেকেই আপনি কিভাবে সেলস-ফানেলের মাধ্যমে ভালো ক্লায়েন্ট পাবেন এবং সেই ক্লায়েন্টকে সার্ভিস দিয়ে আপনি ভালো আয় করবেন সেই ধারণা পাবেন, ইনশাআল্লাহ্‌।

২। প্রোফেশনালের মত সেলস-ফানেল সেটআপ করুন

আপনার সেলস ফানেলটি ৫টি ধাপে ইন্টারেস্টেড ইউজারদের আপনার কাংখিত ক্লায়েন্টে পরিণীত করবে যাদের কাছে আপনি আপনার সবচেয়ে দামী প্রোডাক্টি অফার করবেন এবং সেল করবেন।

যেহেতু আমাদের প্রাথমিক লক্ষ্য হচ্ছে অল্প পরিমান ভিজিটর থেকে অনেক বেশি ইনকাম করা, সেহেতু আমরা প্রাথমিকভাবে আমাদের কনসালটেন্সি সার্ভিস ৫-৫০ হাজার টাকায় সেল করবো।

আমাদের ভিজিটর বৃদ্ধি পাবার সাথে সাথে (ব্লগ মনিটাইজেশন টাইমলাইন অনুযায়ী) আমরা অন্যান্য ইনকাম মডেলগুলো এপ্ল্যাই করবো, যেমন – এফিলিয়েট মার্কেটিং, অনলাইন কোর্স, ডিজিটাল প্রোডাক্টস, স্পন্সর্ড পোস্ট এবং এ্যাড’স প্লেসমেন্ট ইত্যাদি।

সহজ ভাষায়, একটি নতুন ব্লগকে শুরু থেকেই লাভজনক করার সহজ উপায় হচ্ছে, একটি হাই-প্রাইজড প্রোডাক্ট বা সার্ভিস অফার দিয়ে মনিটাইজ করে ব্লগটি পাবলিশ করা।

service offer

এটা একটা সিম্পল ম্যাথ, যেহেতু আমাদের ব্লগটি নতুন এবং খুবই অল্প পরিমান ট্র্যাফিক সেহেতু হাই-প্রাইজড অফার ছাড়া আমরা কাংখিত ইনকাম করতে পারবো না। আর ইনকাম ছাড়া বেশিদিন আমরা মনোযোগ ধরে রাখতে পারবো না।

অল্প ট্র্যাফিক x হাই-প্রাইজ অফার = অধিক ট্র্যাফিক x লো-প্রাইজ অফার

আপনার সেলস ফানেলের ৫টি কার্যকরি ধাপঃ

  1. একজন ইউজার প্রথমে আপনার হাই-প্রাইজড অফারের সাথে সম্পর্কিত ভালোমানের ব্লগ পোস্ট পড়ে।
  2. এরপর তারা আপনার ভ্যালুয়েবল ফ্রি ইবুক বা গাইডলাইন ডাউনলোড করার জন্য আপনার ইমেইল লিস্টে জয়েন করে।
  3. এবার ইউজার ট্রাস্ট বৃদ্ধি করার জন্য (আপনার ফাইনাল অফার রিলেটেড) হাই-ভ্যালুর কিন্তু লো-প্রাইজড অফার তাদের কাছে সেল করুন।
  4. এখন ফিল্টার করা এসব অতি-আগ্রহী ইউজারদের সাথে ইমেইলে বা মেসেজে স্টোরি টেলিং এর মাধ্যমে আপনার ফাইনাল অফার সম্পর্কে জানান এবং তাদের সাথে মিটিং ফিক্স করুন।
  5. মিটিং এ ইউজারের প্রয়োজন অনুসারে তার কাংখিত সমাধান দিন (নির্ধারিত কন্স্যাল্টেন্সি ফি চার্জ করুন) এবং তাকে আপনার লং-টার্ম B2B ক্লায়েন্টে পরিণত করুন।

My Email subscribe format

সুতরাং, একটি ব্রান্ড নিউ ব্লগের জন্য প্রথমে আপনার যা লাগবে –

  • মিনিমাম ৫-১০টি হাই-কোয়ালিটি ব্লগ পোস্ট
  • একটি ইবুক “ফ্রি ডাউনলোড” অফারের জন্য
  • লীড কালেকশন লিস্ট এবং ইমেইল মার্কেটিং এর প্ল্যাটফর্ম
  • একটি সার্ভিস বা কন্স্যাল্টিং পেজ।

আমি আবারও বলছি যে, আপনি একজন স্টার্টআপ বিজনেসের সিইও, প্যাশন ব্লগার নন।

সুতরাং, আপনার নিশের সাথে মিল রেখে আপনাকে অবশ্যই হাই-প্রাইজড সার্ভিস বা প্রোডাক্ট এ্যাড করতে হবে আপনার সাইটে যা মার্কেট এর কোন একটি সমস্যার সমাধান করবে।

কারণ, যেহেতু আপনার ব্লগটি একটি নির্দিস্ট নিশের এবং সেই ব্লগে যে ভিজিটররা আসবে তা যত অল্প পরিমানেই হোক না কেন তারা হাই-ইন্টারেস্টেড ইউজার। সো, তাদের কাছে আপনি আপনার অফার ভালোভাবেই সেল করতে পারবেন।

এজন্য, আপনার ব্লগে প্রথম দিন থেকেই এমন একটি প্রোডাক্ট বা সার্ভিসের অফার থাকতে হবে যা মার্কেট ডিমান্ড পূরণ করতে পারবে।

তাই, আপনার নতুন ব্লগের শুরুতে অসংখ্য ব্লগ পোস্ট লেখার দিকে ফোকাস রাখার দরকার নেই কারণ একদম শুরুতে কেউই সেগুলো সার্চ রেজাল্টে খুজে পাবে না।

এর পরিবর্তে, আপনাকে ফোকাস রাখতে হবে – ৫টি হাই-কোয়ালিটি পিলার ব্লগ পোস্ট, সার্ভিস বা কন্স্যাল্টিং পেজ এবং সেলস ফানেলের দিকে।

আপনার সেলস আউটরিচ বাকীটা করে দিবে।

৩। মার্কেট ডিমান্ড অনুযায়ী হাই-প্রাইজড অফার তৈরি করুন

যেমনটি আমরা আলোচনা করেছি, আপনার নিশ নির্বাচন করা সময়, যে আপনার একটি ইফেক্টিভ সেলস ফানেল থাকতে হবে যার চূড়ান্ত লক্ষ্য হচ্ছে হাই-প্রাইজড অফারকে ক্লায়েন্টদের কাছে সেল করে শুরু থেকেই কাংখিত ইনকাম করার।

প্রথম দিন থেকে, ব্লগিং করে অনলাইন ইনকাম করার জন্য আপনার লক্ষ্য হবে আপনার সার্ভিস বা কন্স্যাল্টিং পেজে টার্গেটেড ট্রাফিক নিয়ে আসা। এই পেজটি আপনার ব্লগের টপ মেনুতে লিংক করা এবং আপনার সার্ভিস রিলেটেড টার্গেটেড কীওয়ার্ড খুঁজে বের করে সেই পেজে অন্তর্ভুক্ত করা।

এবং এই পেজে যেন আপনার একটি প্রোফেশনাল ছবি থাকে এবং সহজেই আপনার সাথে যোগাযোগ করতে পারে তা নিশ্চিত করুন।

service page sample

আপনার ব্লগের হোম পেজ, এ্যাবাউট পেজ, ব্লগ পোস্ট থেকে যেন আপনার কন্স্যাল্টিং বা সার্ভিস পেজে লিংক করা থাকে তা নিশ্চিত করুন।

এমনকি আপনি যখন গেস্ট পোস্ট করবেন তখন গেস্ট পোস্ট এর অথোর-বায়ো থেকে এই পেজে লিংক করুন।

এখানে আমার একটি উদাহরণস্বরূপ দিলাম আপনাদের জন্য, যেন বুঝতে সহজ হয়ঃ

রিকো একজন ডিজিটাল মার্কেটিং কন্স্যাল্ট্যান্ট এবং ব্লগার। বর্তমানে তিনি ঢাকা, বাংলাদেশে থাকেন এবং স্টার্টআপ ব্লগিং বিজনেস নিয়ে লেখালিখি করেন IMREKO.COM এ।

৪। সর্বাত্মকভাবে এফিলিয়েট মার্কেটিং এ ফোকাস করুন

ব্লগ মনিটাইজেশনের জন্য আমার সবচেয়ে বেশি পছন্দ হচ্ছে এফিলিয়েট মার্কেটিং।

আপনি যদি সবচেয়ে লাভজনক ব্লগ গুলোর দিকে দেখেন, তাহলে দেখবেন যে প্রায় সবকটি ব্লগই এফিলিয়েট মার্কেটিং কে বেছে নিয়েছে ব্লগ মনিটাইজেশনের জন্য।

আর এফিলিয়েট মার্কেটিং এ সফল হওয়ার জন্য আপনাকে টার্গেটেড কীওয়ার্ডে র‌্যাঙ্ক করতে হবে (সেইসব কীওয়ার্ড যেগুলো ক্রেতারা কোন প্রোডাক্ট বা সার্ভিস কেনার আগে সেই প্রোডাক্ট বা সার্ভিসের রিভিউ পড়ে কেনার ডিসিশন নিয়ে থাকে)।

কনফিউজড? চলুন উদাহরণস্বরূপ বোঝার চেস্টা করি…

আচ্ছা, যদি আমি গুগোলে সার্চ করি “best hoverboard for kids”

স্ক্রিনশট ইমেজ অফ সার্চ

তাহলে আমরা দেখতে পাচ্ছি Popular Mechanics প্রথম এবং Gadget Review দ্বিতীয় অবস্থানে আছে – আর উভয়ই এফিলিয়েট ব্লগ।

আমরা যখন ব্লগ দুটি ভিজিট করি, তখন আমরা কী দেখতে পাই? এফিলিয়েট লিংক সহ পিলার লিস্ট পোস্ট যেখানে হোভারবোর্ড রিকমেন্ড করা হয়েছে ক্রেতাদের কাছে তাদের প্রয়োজন অনুসারে।

Popular Mechanics

এখন, যদি কোন ক্রেতা “শপ এ্যাট এ্যামাজন” এফিলিয়েট লিংকে ক্লিক করে তাহলে তারা এ্যামাজন.কম এর ওই প্রোডাক্টের পেজে চলে যাবে এবং সেই প্রোডাক্টটি বা অন্য যেকোনো প্রোডাক্ট অর্ডার করে তাহলে প্রতিটি সেল থেকে আপনি এফিলিয়েট কমিশন আয় করবেন।

কীওয়ার্ড রিসার্স

যেহেতু “best hoverboard for kids” এই টার্মটি বা কীওয়ার্ডটি প্রতি মাসে ৫৬০০ বার গুগোলে সার্চ করা হয়, সেহেতু এই পোস্টটি একটি প্যাসিভ ইনকাম মেশিন।

একটি বিষয় লক্ষ্য করেছেন, আমরা সার্চ করে যে রেজাল্ট গুলো পেলাম সেখানে কোন ব্রান্ড ওয়েবসাইট নাই, সবগুলোই “বেস্ট + লিস্ট” পোস্ট। 

কারণ কি… বলতে পারবেন?

কারণ হচ্ছে – ইউজার ইন্টেন্ট!

এই ইউজার এখনো কেনার জন্য সম্পুর্ন প্রস্তুত না। তারা লং রিভিউ পড়তে চায় সেই প্রোডাক্ট বা সার্ভিসের উপর, কম্পেয়ার করে দেখতে চায় যে কোনটি তাদের জন্য সবচেয়ে ভালো অন্য সবগুলোর থেকে।

এভাবে আপনি ব্লগিং এর মাধ্যমে অনলাইন ইনকাম করতে পারবেন।

এরজন্য ইউজার ইন্টেন্ট এর উপর নির্ভর করে টার্গেটেড এবং লো-কম্পিটিশনের কীওয়ার্ড খুঁজে বের করে সেই কীওয়ার্ডে গুগোল বা অন্য সার্চ ইঞ্জিন থেকে ট্র্যাফিক ব্লগে আনতে হবে।

এরপর ইউজারদের সঠিক প্রোডাক্ট নির্বাচনে সাহায্য করতে হবে এবং এফিলিয়েট লিংকে ক্লিক করিয়ে মার্চেন্ট সাইটে (এ্যামাজন.কম বা অন্য যাদের এফিলিয়েশন আপনি করবেন) পাঠাতে হবে।

এজন্য আপনাকে একটা ব্লগ তৈরি করতে হবে (আপনার যদি ব্লগ না থাকে এবং নিজে তৈরি করতে না পারেন তাহলে অন-স্পট মার্কেটিং থেকে খুবই অল্প টাকায় একটি ব্লগ সাইট তৈরি করে নিতে পারবেন) এবং সেখানে বাইং ইন্টেন্ট আছে এমন কীওয়ার্ডের উপর ব্লগ পোস্ট লিখতে হবে।

niche site building service

মনে রাখবেন, আপনার ব্লগটি হচ্ছে মধ্যস্থতাকারী একজন ক্রেতা এবং বিক্রেতার মধ্যে।

এজন্য আপনাকে এমনভাবে কন্টেন্ট স্কেলিং করতে হবে, যেন তা আগ্রহী ক্রেতাকে কনভেন্স করিয়ে প্রোডাক্টটি সেল করতে পারে তাহলেই শুধু আপনি কমিশন আয় করতে পারবেন। উদ্দেশ্যহীন বা এলোমেলো তথ্য সমৃদ্ধ কন্টেন্ট দিয়ে লাভ নাই যা মনিটাইজ করা যাবে না।

শেষকথা …

B2B বিজনেস অপারচুনেটি এবং মার্কেট ডিমান্ড এর উপর ভিত্তি করে আপনার নিশ সিলেক্ট করার মাধ্যমে আপনি আপনার ব্লগের ইনকাম ২০০গুণ বাড়াতে পারবেন।

আপনার ব্লগের কন্টেন্ট স্কেলিং স্ট্রাটেজি, অন ও অফ পেজ এসইও এ্যাক্টিভিটি একটি চলমান প্রক্রিয়া। অন্যদিকে কন্টেন্ট আউটসোর্স করার মাধ্যমে আপনি আপনার মূল্যবান সময় বাঁচাতে পারবেন।

যে সময়টুকু আপনি আপনার নিশ রিলেটেড ব্লগারদের সাথে সম্পর্ক তৈরি করার কাজে লাগাবেন। এরফলে অতি অল্প সময়ে আপনি অনেক গেস্ট পোস্ট ব্যাকলিংক পাবেন যার মাধ্যমে আপনার ব্লগের ডোমেইন অথোরিটি ২০০ গুণ বাড়াতে পারবেন।

আপনার ডোমেইন অথোরিটি যত বাড়বে তত বেশি ট্র্যাফিক আপনার ব্লগে টানতে পারবেন।

সবশেষে, আপনার ব্লগের জন্য হাই-প্রাইজড সার্ভিস বা কন্স্যাল্টিং অফারের মাধ্যমে প্রথম দিন থেকেই ব্লগ মনিটাইজেশন করতে পারবেন।

এবং একজন ব্লগার হিসেবে ৬-মাসের মধ্যে অনেক ভালো অনলাইন ইনকাম করতে পারবেন, এরজন্য আপনাকে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হবে না।

আমি আশা করি যে, আমার এই ব্লগ পোস্টটি আপনাকে ব্লগিং করে কিভাবে অর্থ আয় করতে হয় তা শিখতে সহায়তা করেছে।

আপনি আমার “৭-দিনে ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগিং শুরু করুন” চেকলিস্ট ডাউনলোড করে আপনার ব্লগিং স্বপ্নকে আরও দ্রুত বাস্তবায়ন করতে পারবেন। এছাড়াও এর মাধ্যমে আপনি আমার ইমেইল লিস্টে জয়েন করে নেক্সট এক্সাইটিং ব্লগ পোস্টের আপডেট পাবেন।

রিকমেন্ডেড কোর্সঃ আপনি যদি বিগেনার হন এবং ব্লগিং এর মাধ্যমে এফিলিয়েট মার্কেটিং শিখতে চান তাহলে আপনি “বি-স্কিলডঃ এফিলিয়েট মার্কেটিং ক্র্যাশ কোর্সে” জয়েন করতে পারেন। কোর্স সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

Reko Ashikur Rahman

Author

Reko Ashikur Rahman

Reko is a full-time blogger and affiliate marketer. Join Reko and 50k monthly readers on Imreko.com to learn how to start and develop your IT startup business. As a Head of Digital Marketing, Reko managed digital marketing teams for large IT companies.

Comments (4)

  1. Avatar
    Muhammad LABIB HOSSEN akash
    December 19, 2022 Reply

    Ke vaba korbo

    • Reko Ashikur Rahman
      Reko Ashikur Rahman
      December 22, 2022 Reply

      ধন্যবাদ আপনার আগ্রহের জন্য। আপনি “অনলাইন ইনকাম” ক্যাটেগরির পোস্টগুলো ভালোভাবে পড়ুন, তাহলে আশাকরি বিষয়গুলো খুব ভালোভাবে বুঝতে পারবেন।

  2. Avatar
    Shahidullah
    December 19, 2022 Reply

    I want to be a blogger. I’m new here. I need full support. Can you be able to provide support.

    • Reko Ashikur Rahman
      Reko Ashikur Rahman
      December 22, 2022 Reply

      আপনি “অনলাইন ইনকাম” ক্যাটেগরির পোস্টগুলো ভালোভাবে পড়ুন, তাহলে আশাকরি অনেক ভালো কিছু শিখতে পারবেন। যা আপনার ব্লগিং ক্যারিয়ারকে সঠিকভাবে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাবে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!